1. mznrs@yahoo.com : MIZANUR RAHMAN : MIZANUR RAHMAN
  2. jmitsolutionbd@gmail.com : jmmasud :
মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৩:০৩ অপরাহ্ন

প্রতিমন্ত্রী বলছেন সরকারি সুবিধা বাড়ানো হচ্ছে, শিক্ষক সমিতি বলছেন ভিন্ন কথা

  • প্রকাশিত : রবিবার, ২৫ ডিসেম্বর, ২০২২
  • ৩০২ জন সংবাদটি পড়েছেন।

ঢাকা:

সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী মো. আশরাফ আলী খান খসরু বলেছেন, প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ে সরকারি সুবিধা বাড়ানো হচ্ছে। সরকারের পাশাপাশি বেসরকারিভাবে প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় স্থাপন করায় প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার সুযোগ বেড়েছে। অপরদিকে বাংলাদেশ প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি’র আহবায়ক আরিফুর রহমান অপু বলেন ২০২০ সালের জানুয়ারী মাসে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে সারাদেশ হতে প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় স্বীকৃতি ও এমপিও এর আবেদন গ্রহণ করে।এখন পর্যন্ত সরকার সেই আবেদন কৃত বিদ্যালয় হতে ১ টি বিদ্যালয়ও স্বীকৃতি প্রদান করেনি।

প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু বলেন, প্রতিবন্ধীতাকে এখন আর অভিশাপ মনে করা হয় না। সরকারের বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধার ফলে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা স্বাভাবিক মানুষের মতো জীবনযাপন করছেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য কাজ শুরু করেন। যারা বিভিন্ন সময়ে দেশ পরিচালনা করেছে তারা প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বিষয়ে কিছু করেনি। বর্তমান সরকারের নানামুখী পদক্ষেপের কারণে প্রতিবন্ধীতাকে জয় করে আমাদের বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশুরা ক্রীড়া নৈপুণ্য প্রদর্শন করে বৈশ্বিক পরিমণ্ডলে দেশের মুখ উজ্জ্বল করেছে।

সুইড বাংলাদেশের সভাপতি ফরিদ আহমেদ ভুঁইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য (এমপি) মাহবুব আরা গিনি ও সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. জাহাঙ্গীর আলম।

অপরদিকে বাংলাদেশ প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি’র মুখপাত্ররা জানান,  সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে সারাদেশ হতে প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় স্বীকৃতি ও এমপিও এর আবেদন গ্রহণ করে।এখন পর্যন্ত সরকার সেই আবেদন কৃত বিদ্যালয় হতে ১ টি বিদ্যালয়ও স্বীকৃতি প্রদান করেনি। এখন সরকার ঘোষনা করছেন যে সরকার নিজ উদ্যোগে প্রতি জেলায় একটি স্কুল স্থাপন করবে সরকারি ভাবে।অনলাইনে আবেদনকৃত সারাদেশের স্কুল গুলোর কি হবে তা নিয়ে কিছু বলছেন না। যারা প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের সাথে জরিত তাদের কি পরিবার পরিজন নাই? তাদের কি ক্ষুধা নাই? তাদের কি পেট নাই? তাদের কি মৌলিক অধিকার নাই? সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় সকালে এক রকম বলবে, আর বিকেলে আরেকরকম বলবে, এটা হতে পারে না।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020
Design Developed By : JM IT SOLUTION